Latest news

নাজিরপুরে ডাব খাওয়াকে কেন্দ্র ভাতিজাদের হাতে চাচা নিহত

বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১ | ২:৫০ পিএম | 62 বার

মে ২০২১
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
« এপ্রিল    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
নাজিরপুরে ডাব খাওয়াকে কেন্দ্র  ভাতিজাদের হাতে চাচা নিহত

নাজিরপুর (পিরোজপুর) প্রতিনিধি: পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার শেখমাটিয়া ইউনিয়নের বাকসী গ্রামে বুধবার (২১ এপ্রিল) ডাব খাওয়াকে কেন্দ্র করে ছোট ভাই ও তার ছেলেদের হামলায় বড় ভাই মো. মহসিন মোল্লা (৫০) নিহত হয়েছেন। নিহত মহসিন মোল্লা ওই গ্রামের মৃত হাশেম মোল্লার ছেলে। তিনি পেশায় একজন অটোরাইস মিলের মিস্ত্রী। এ হামলার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে থানা পুলিশ নিহতের ভাইপো রসুল মোল্লা (২০) ও রিয়াজ মোল্লা(১৮)কে আটক করেছে।
নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকাল ৯ টার দিকে মহাসিন মোল্লা তার পৈত্রিক জমিতে থাকা নারিকেল গাছ থেকে নারিকেল পাড়ছিলেন। এ সময় ছোট ভাই রুস্তুম মোল্লা তাকে নারিকেল পাড়তে বাধা দেন। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রুস্তুম মোল্লার দুই ছেলে তাকে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করলে তিনি গুরুতর আহত হন।
পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে আশঙ্খাজন অবস্থা দেখে কর্তব্যরত চিকিৎক উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর আড়াইটার দিকে তার মৃত্যু হয়।
নিহতের ছেলে মশিউর রহমান মিঠু জানান, তার পিতা অটোরাইস মিলের একজন ঠিকাদার মিস্ত্রী হিসেবে রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে কাজ করেন। কিন্তু করোনার বন্ধের কারণে তিনি বাড়িতে আসেন। বুধবার সকালে নিজ বাড়ির নারিকেল পাড়তে গেলে তার ভাইয়ের সাথে কথার কাটাকাটি হলে তার ছেলেরা এসে তাকে পিটিয়ে আহত করে। পরে তিনি খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
স্থানীয় একাধীক সূত্রে জানা যায় মহশিনের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পারলে এলাকার লোকজরন ঐ দুই আসামীকে ধৃত করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। গ্রেফতারকৃত ওই দুই আসামী এলাকায় দীর্ঘদীন নেশার স¤্রাট হিসাবে পরিচিত তাদের ভয়ে কেউ কখনও মুখ খোলেনি।
নাজিরপুর থানার অফিসার ইন চার্জ মো. আশ্রাফুজ্জামান জানান, মৃতের ছেলে মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২ জনকে আটক করা হয়েছে।

মোরেলগঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রী নিয়ে অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদ নিন্দা জানিয়েছে ভূক্তভোগী পরিবার

২০১১-২০১৬ | কোনো সংবাদ বা ছবি অন্য কোথাও প্রকাশ করবেন না

Development: Zahidit.Com

ঘোষনাঃ
Translate »